পাকিস্তানকে বিদায় করে সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার যুবারা

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের এবারের আসরে শিরোপার অন্যতম দাবিদার ছিল পাকিস্তান। গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোয় দেখা গিয়েছিল তাদের দাপট।

কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে এসেই তাদেরকে পড়তে হলো আরেক ফেভারিট অস্ট্রেলিয়ার সামনে। তাতে পাকিস্তানকে রীতিমত বিধ্বস্ত করে সেমিফাইনালে পৌছে গেছে অজি যুবারা।

অ্যান্টিগার নর্থ সাউন্ডে স্যার ভিভ রিচার্ডস স্টেডিয়ামে টস জিতে অস্ট্রেলিয়া যুবাদের ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান পাকিস্তানের অধিনায়ক

কাশিম আকরাম। ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতেই ৮৬ রান তুলে ফেলেন দুই ওপেনার ক্যাম্পবেল কেলাওয়ে এবং টিগ উইলি। ৪৭ রানে ক্যাম্পবেল আউটে ভাঙ্গে এই জুটি।

ক্যাম্পবেল আউট হলে দ্বিতীয় উইকেটে কোরি মিলারকে নিয়ে আরেকটা জুটি গড়েন উইলি। উইলি করেন ৭১ রান। মিলার খেলে যান ৬৪ রানের ইনিংস। দু’জন মিলে ১০১ রানের জুটি গড়ে দলকে নিয়ে যান ভালো সংগ্রহের পথে।

এরপর বাকি পথটা পারি দেন কুপার কনোলি (৩৩), এইডেন কাহিল (১৮)এবং উইলিয়াম সালজম্যান (২৫)। দলীয় প্রচেষ্টায় শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেট হারিয়ে ২৭৬ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়ান যুবারা।

২৭৭ রানের টার্গেটে শুরু থেকেই অজি বোলারদের তোপে নিয়মিত বিরতিতে মুড়িমুড়কির মতো উইকেট হারাতে থাকে পাকিস্তান। এক পর্যায়ে ৯৭ রানেই হারিয়ে বসে ৭ উইকেট। সেখান থেকে মেহরান মুমতাজ সর্বোচ্চ ২৯ রান দলকে নিয়ে যায় ১৪২ পর্যন্ত। মুমতাজ আউট হতেই ধ্বসে পাকিস্তানের ইনিংস।

বাকিদের মধ্যে আবদুল ফাসিহ ২৮ এবং ইরফান খান করেন ২৭ রান। পাকিস্তানের যুবাদের পাঁচজন ছুতে পারেনি দুই অঙ্কের কোটাও! তাতে অলআউট হওয়ার আগে পাকিস্তান স্কোরবোর্ডে জমা করে ১৫৭ রান।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন উইলিয়াম সালজম্যান। ২টি করে উইকেট শিকার করেন জ্যাক সিনফিল্ড এবং টম হুইটনি। ১টি করে উইকেট ঝুলিতে পুরেন জ্যাক নিসবেট এবং এইডেন কাহিল।