নাক দিয়ে র,ক্ত ঝরছে, তবু হাসিমুখে সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন ক্রিকেটার

চতুর্থবার বিগ ব্যাশ লিগ জিতল পারথ স্কর্চার্স। শুক্রবার অনুষ্ঠিত ফাইনাল ম্যাচে সিডনি সিক্সার্সকে ৭৯ রানে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় পার্থ। এটি ছিল স্কোর্চার্সের জন্য একটি সহজ জয়। সিক্সার্স দলকে এই ম্যাচে

স্কর্চার্সকে কঠিন লড়াই দিতে ব্যর্থ। মেলবোর্নের ডকল্যান্ড স্টেডিয়ামে ১৭২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে সিক্সার্স ১৬.২ ওভারে মাত্র ৯২ রানেই

অলআউট হয়ে যায়। পারথ স্কর্চার্সরা এখন সবচেয়ে বেশিবার বিগ ব্যাশ লিগের শিরোপা জিতেছে। জয়ের পর স্কর্চার্স-এর খেলোয়াড়দের ম্য়াচ জযের উদযাপন করতে দেখা গেল।

সেলিব্রেশন এতটাই বেড়ে যায় যে এর মধ্যেই নাকে চোট পান ঝাই রিচার্ডসন। তার নাক-মুখ দিয়ে র,ক্ত ​​ঝরতে থাকে তার। তবু সেই চোটকে

কোনও গুরুত্ব দিলেন না ঝাই। ফাস্ট বোলারের ওপর এর কোনও প্রভাব পড়েনি। ম্যাচ শেষে মুখের র,ক্ত মুছতে মুছতে হাসিমুখে সাক্ষাৎকার দিতে থাকেন রিচার্ডসন।

জয়ের পর রিচার্ডসন হেসে বললেন, ‘জেতা সবসময়ই রোমাঞ্চকর।’ সঙ্গে সঙ্গে এর ভিডিয়ো ভাইরাল হয়ে যায়। চোটের পর রিচার্ডসনের আচরণের প্রশংসা করতে শুরু করেন ভক্তরা। এদিনের ফাইনাল ম্যাচে রিচার্ডসন ৩.২ ওভারে ২০ রানে দুটি উইকেট নিয়েছেন।

ম্যাচের কথা বললে, প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ পেয়ে পারথ স্কর্চার্স ৬ উইকেটে ১৭১ রান করে। একটা সময়ে দলের স্কোর ছিল চার উইকেটে ২৫ রান। কিন্তু লরি লুইস এবং অধিনায়ক অ্যাশটন টার্নারের হাফ সেঞ্চুরি দলকে শক্তিশালী স্কোরে পৌঁছাতে সাহায্য করে।

সিডনি দল লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হয়। দলের ব্যাটিং পুরোপুরি ভেঙে পড়ে। ৫৫ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন ড্যানিয়েল হিউজ। অন্য প্রান্তে তিনি কোনও সমর্থন পাননি। সহজেই ট্রফি জেতে পার্থ স্কোর্চার্স।