টিভি পর্দায় ‘আ’লি’ঙ্গন-চু’ম্ব’ন’ নিষিদ্ধ করলো পাকিস্তান,

নাটকের দৃশ্যে মহিলা-পুরু;ষের আ;লি;ঙ্গন চলবে না। চলবে না চু;ম্ব;ন। মহিলা-পুরুষের শয্যা;দৃশ্যও দেখানো ,যাবে না। পাকিস্তান ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া রেগুলেটরি অথরিটি ,শনিবার বিবৃ;তি দিয়ে জানিয়ে দিল এই সিদ্ধান্তের কথা।

বিবৃতিতে ,বল হয়েছে, ‘দেখা গিয়েছে পাকিস্তানের অধিকাংশ ,চ্যানেল আপত্তিকর দৃশ্যের, সম্প্রচার করছে। অভিনেত্রীদের পরণে স্বল্প পোশাক। কোনও কারণ ছাড়াই একে অপরকে জড়িয়ে ধরছে। ঠোঁটে ঠোঁট লাগিয়ে চলছে চু;ম্বন এবং দী;র্ঘক্ষণ ধরে।

দেখানো ,হচ্ছে যৌ;;নদৃ;শ্য। এই ধরণের দৃশ্যের সম্প্রচার, অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। এই ধরণের, দৃশ্য আ;প;ত্তিকর ,বলেই বিবেচিত হবে। নির্দেশ পালন না করলে সংশ্লিষ্ট, চ্যানেলের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ করা হবে। দরকারে,ওই টিভি চ্যানেলের লাইসেন্স ,বাতিল করে দেওয়া হবে।’

পাকিস্তানে সম্প্রচারিত, ধারাবাহিক নিয়েও ওই বিবৃতিতে ক্ষো;ভ প্রকাশ করে বলা হয়েছে, ধা;রাবাহিকগুলো খুবই নিম্ন মানের। ধারাবাহিকগুলো ,পাকিস্তানের ভাবধারা বি;রোধী। এ

মন কিছু বিষয়ের, ওপর ভিত্তি করে ধারাবাহিকগুলো তৈরি করছে যা, কার্যত ইসলাম-বিরোধী। অধিকাংশ ধারাবা;হিক যৌনগন্ধী। দেখা গিয়েছে, বহু ধারাবাহিকের বিষয়বস্তু বিবাহ-বহির্ভূত, সম্পর্ক। ইসলাম রীতি-নীতি এই ধরনের ,সম্পর্ককে মান্যতা দেয় না।

পাকিস্তান ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া, রেগুলেটরি বিবৃতিতে জানিয়েছে, নাটক বা ধারাবাহিক সম্প্রচারিত হওয়ার আগে ওই সব দৃশ্য ছেঁটে, ফেলতে হবে। অক্ষরে অক্ষরে পালন করতে, হবে নির্দেশিকা। না হলে ওই চ্যানেলের বিরু;দ্ধে কড়া, পদক্ষেপ করা হবে।

পাকিস্তানে, টিকটকের মতো সোশ্যাল মিডিয়া, অ্যাপও নিষিদ্ধ।

অ;শ্লীলতা;র অ;ভিযোগে গত বছর, পেমরা তিনটি টিভি নাটক এবং ওয়েব সিরিজ, চুরাই;লকে নিষি;দ্ধ করেছি;ল।

কয়েকদশক ধরে পাকিস্তানের, চলচ্চিত্র শিল্পের অবস্থা পড়তির দিকে। তবে ,মানসম্মত স্ক্রিপ্ট আর পারিবারিক এবং সামাজিক ,জীবনের সূক্ষ্ম চিত্রায়নের কারণে দেশটির টিভি নাটক, ও সিরিয়ালগুলোর দর্শকপ্রিয়তা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *