সৌদিতে প্রবাসী বা মালিকের লাভের জন্য অন্যকোথাও কাজ করতে দিলে জেল ও জরিমানা

নতুন এক বিবৃতিতে সৌদি আরবের জেনারেল ডিরেক্টরেট অফ পাসপোর্ট, জাওয়াজাত সসকল প্রবাসীদেরে উদ্দেশে জানিয়েছে,
প্রবাসী বা মালিকের লাভের জন্য অন্যকোথাও কাজ করতে দিলে জেল ও জরিমানা করা হবে । তবে ওই

অভিযুক্ত মালিক প্রথমবারের মতো এই অপরাধ করেন, তবে তাকে ১ মাসের জেল এবং ৫ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধে অভিযুক্ত হলে তাকে ২ মাসের জেল, এবং ২০ হাজার রিয়াল জরিমানার শাস্তি প্রদান করা হবে।

তৃতীয়বারের মতো যদি উক্ত মালিক নিজের অধীনস্ত প্রবাসী কর্মীকে কর্মীর নিজের লাভ এর জন্য বা নিজের জন্য টাকা উপার্জনের জন্য নির্ধারিত চাকুরীর বাইরে অন্য চাকুরী বা কাজ করার অনুমতি দেন, তবে মালিককে ৩ মাসের জেল, এবং ৫০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।

সকল ক্ষেত্রেই মালিক যতজন প্রবাসী কর্মীকে তাদের নিজেদের লাভ এর জন্য কাজ করার অনুমতি প্রদান করবেন, সেই কর্মী সংখ্যা অনুযায়ী জরিমানার পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে।

জেল ও জরিমানার পাশাপাশি উক্ত মালিক কমপক্ষে এক বছর কোন প্রবাসী কর্মীকে নিয়োগ দিতে পারবেন না, এবং দ্বিতীয়বার একই অপরাধ করলে তিনি কমপক্ষে দুই বছর পর্যন্ত কোন প্রবাসী কর্মীকে নিয়োগ দিতে পারবেন না।

শুধু মালিককে নয়, নিজের লাভ এর জন্য ভিন্ন চাকুরী বা কাজ করা প্রবাসীকেও জেল ও জরিমানার শাস্তি দেয়া হবে। জাওয়াজাত জানিয়েছে, অভিযুক্ত প্রবাসী কর্মীকে ৬ মাসের জেল এবং ৫০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে। এবং, কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষে এবং জরিমানা প্রদান এর পরে উক্ত প্রবাসীকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

যদি কোন সৌদি প্রবাসী নিজের লাভ এর জন্য অন্য আরেকজন সৌদি প্রবাসীকে নিজের কাজে নিয়োগ দেন, তবে সহযোগী প্রবাসীকে ৫

হাজার রিয়াল জরিমানা অথবা ১ মাসের জেল এর সাজা প্রদান করা হবে। এর পাশাপাশি শাস্তির মেয়াদ শেষ হবার পরে তাকে নিজ দেশে
ফেরত পাঠানো হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *